1. jubayer.jay@gmail.com : jubayer Ahmed : jubayer Ahmed
  2. admin@sylhetmail24.com : jubayer :
  3. shahabuddin1234@gmail.com : shuhebkhan :
  4. unoskhanrukon@gmail.com : unoskhan :
মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:২৯ অপরাহ্ন

লঞ্চের কেবিনে নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা

  • প্রকাশিত হয়েছে: সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৫১ বার পড়া হয়েছে
লঞ্চের কেবিনে নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা

ঢাকা থেকে বরিশালগামী এমভি পারাবত-১১ লঞ্চের কেবিনে এক নারীকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার ভোরে লঞ্চটি বরিশাল নদী বন্দরে পৌঁছার পর মধ্যবয়সী ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

ওই নারীর সাথে থাকা সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে সিসি ক্যামেরার ফুটেজে পুলিশ শনাক্ত করতে পারলেও তাকে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এমভি পারাবত-১১ লঞ্চের মাস্টার মো. শামীম বলেন, রোববার সাড়ে ৬টায় ঢাকার সদরঘাট থেকে এক ব্যক্তি ওই নারীকে সাথে নিয়ে লঞ্চের তৃতীয় তলার ৩৯১ নম্বর সিঙ্গেল কেবিনে ওঠেন। লঞ্চের রেজিস্টারে তার নাম দেয়া হয় কামরুল। ভোর ৪টা ৪৭ মিনিটে লঞ্চটি বরিশাল নদীবন্দরে নোঙর করলে ওই নারীর সাথে থাকা পুরুষ ব্যক্তি নারীর ব্যাগ, মাস্ক এবং ওড়না নিয়ে দ্রুত নেমে যায়। তার মুখমণ্ডলে মাস্ক পরিহিত ছিলো।

তিনি বলেন, অন্যান্য সকল যাত্রী নেমে যাওয়ার পরও কেবিনে থাকা নারী না নামায় তাকে ডাকাডাকি করি। কিন্তু কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে নৌ পুলিশে খবর দেই।

খবর পেয়ে নৌ পুলিশ, থানা পুলিশ এবং সিআইডি’র ক্রাইমসিন বিশেষজ্ঞদল ওই নারীর মৃতদেহসহ খুঁটিনাটি সব বিষয় পরীক্ষা নিরীক্ষা করে।

সিআইডি ক্রাইমসিন ইউনিটের পরিদর্শক আল মামুনুল ইসলাম জানান, ওই নারীকে ধর্ষণ শেষে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে এবং তার গলায় শ্বাসরোধ করার চিহ্ন রয়েছে। লঞ্চের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্লেষণ করে ওই নারীর সাথে থাকা সন্দেহভাজন পুরুষ ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়েছে। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ থেকে সন্দেহভাজন ব্যক্তির ছবি সংগ্রহ করে বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য ওই নারীর লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। তার পরিচয় বের করার চেষ্টা চলছে।

এ ঘটনায় মামলা দায়েরসহ অভিযুক্ত সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন মেট্রোপলিটন পুলিশের কর্মকর্তারা।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো সংবাদ