1. jubayer.jay@gmail.com : jubayer Ahmed : jubayer Ahmed
  2. admin@sylhetmail24.com : jubayer :
  3. shahabuddin1234@gmail.com : shuhebkhan :
  4. unoskhanrukon@gmail.com : unoskhan :
শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০১:১৮ পূর্বাহ্ন

আলোচিত রিফাত হত্যা মামলার রায় ৩০ সেপ্টেম্বর

  • প্রকাশিত হয়েছে: বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৪৫ বার পড়া হয়েছে

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিচারিক কার্যক্রম শেষ হওয়ায় আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর রায়ের দিন নির্ধারণ করেছেন আদালত। এ সময় মিন্নির জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় পুনরায় তাকে বরগুনা জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল বারী আসলামের জিম্মায় জামিন দেওয়া হয়েছে। বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বরগুনা জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আসাদুজ্জামান এ রায়ের তারিখ নির্ধারণ ও মিন্নির জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।

প্রাপ্তবয়স্ক আসামিরা হলেন—রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজি (২৩), আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজওয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো. হাসান (১৯), মো. মুসা (২২), আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো. সাগর (১৯), ও কামরুল ইসলাম সাইমুন (২১)।

মামলার নিয়মিত ধার্য তারিখে বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টার দিকে বাবার সঙ্গে আদালত চত্বরে আসেন রিফাত হত্যা মামলার সাক্ষি থেকে আসামি হওয়া নিহত রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি। আদালতে হাজির করা হয় বরগুনা জেলা কারাগারে থাকা ৮ আসামিকে। এরপর সকাল ১০টায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আসাদুজ্জামান মামলার বিচারিক কার্যক্রম শুরু করেন।

আদালত প্রাঙ্গণে মিন্নিমিন্নির আইনজীবী মাহবুবুল বারী আসলাম বলেন, ‘আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির পক্ষে-বিপক্ষে যুক্তি-তর্ক উপস্থাপন শেষ হয়েছে। ইতোমধ্যেই মিন্নিকে নির্দোষ প্রমাণের জন্য আদালতে আমরা যুক্তি উপস্থাপন করেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘যুক্তিতর্ক শেষ হয়েছে, তবে সঙ্গে সঙ্গে উচ্চ আদালতের আদেশে জামিনে থাকা আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির জামিনের মেয়াদও শেষ হয়েছে। তাই পুনরায় মিন্নির জামিনের জন্য আবেদন করলে আদালত মিন্নিকে আমার জিম্মায় দিয়েছেন।’

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ভুবন চন্দ্র হাওলাদার বলেন, ‘উভয়পক্ষের যুক্তি খণ্ডন শেষে বিচারক সন্তুষ্ট হয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর মামলার রায়ের জন্য তারিখ নির্ধারণ করেছেন। আমরা রাষ্ট্রপক্ষ আশাবাদী এই রায়ের মধ্য দিয়ে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন হবে। সেইসঙ্গে নিহত রিফাতের পরিবার ন্যায্য বিচার পাবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘মামলায় ৭৬ জন সাক্ষি তাদের সাক্ষ্য দিয়েছেন।’

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে নয়ন ও তার সহযোগী সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে রিফাত শরীফকে গুরুতর আহত করে। এরপর বীরদর্পে অস্ত্র উঁচিয়ে এলাকা ত্যাগ করে তারা। গুরুতর আহত রিফাত বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ওই দিনই মারা যান।

গত ১ সেপ্টেম্বর রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দুই ভাগে বিভক্ত অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দেয় পুলিশ। একইসঙ্গে রিফাত হত্যা মামলার এক নম্বর আসামি নয়ন বন্ড বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

গত ১ জানুয়ারি রিফাত হত্যা মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালত। অন্যদিকে, গত ৮ জানুয়ারি রিফাত হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন বরগুনার শিশু আদালত।

এ মামলার চার্জশিটভুক্ত প্রাপ্তবয়স্ক আসামি মো. মুসা এখনও পলাতক রয়েছেন। এছাড়াও নিহত রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ অপ্রাপ্তবয়স্ক ৮ আসামি উচ্চ আদালত এবং বরগুনার শিশু আদালতের আদেশে জামিনে রয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো সংবাদ
DMCA.com Protection Status